হিন্দু সন্ত্রাসবাদী স্লোগান না দেওয়ায় ফের মাদরাসা ছাত্রদের মারধর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের উত্তরপ্রদেশের উন্নাও জেলায় কয়েকজন মাদরাসা ছাত্রকে হিন্দুত্ববাদী স্লোগান না দিতে চাওয়ায় তাদের মারধর করেছে উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসীরা। ভারতের বিভিন্ন স্থানে সম্প্রতি এ রকম একাধিক ঘটনা ঘটেছে।

লক্ষ্ণৌ থেকে বিবিসির সমীরাত্মজ মিশ্র বলছে, পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ প্রদর্শনের পরে উন্নাও শহরে ব্যাপকহারে পুলিশ আর বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

যে মাদরাসার ছাত্ররা মার খেয়েছে, সেখানকার কর্মকর্তারা অভিযোগ করছেন, ছাত্রদের দিয়ে জোর করে হিন্দুত্ববাদী স্লোগান বলানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু ওই স্লোগান দিতে অস্বীকার করায় তাদের ব্যাপক মারধর করে উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসীরা।

মাদরাসা দার-উল উলুমের পরিচালক মো. নঈম জানান, কয়েকজন ছাত্র বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় জি আই সি ময়দানে ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল। ১২-১৪ বছরের কয়েকজন ছাত্র যখন ওই মাঠে খেলছিল, সেখানে কয়েকজন বয়সে বড় কিছু ছেলে হাজির হয়। তারা ব্যাট কেড়ে নিয়ে হিন্দুত্ববাদী স্লোগান দেয়ার জন্য জবরদস্তি করতে থাকে উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসীরা। আমাদের ছাত্ররা হিন্দুত্ববাদী স্লোগান দিতে অস্বীকার করে। তখন ওই ক্রিকেট ব্যাট দিয়েই মারা হতে থাকে। কয়েকজন ছাত্রের মাথা ফেটে গেছে।

তার অভিযোগের ভিত্তিতেই পুলিশ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে। দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, জবরদস্তি করে হিন্দুত্ববাদী স্লোগান দেওয়া হয়েছে বলে যে অভিযোগ করা হচ্ছে, ঘটনা তা নয়। কেন মাদরাসা ছাত্রদের মারধর করা হয়েছে, তা তদন্ত করা হচ্ছে।

আপনার মতামত