স্থগিত রাজাকার তালিকা : ব্যবস্থা নিতে পারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

ব্যবস্থা নিতে পারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্থগিত হওয়া রাজাকারের বিতর্কিত তালিকার বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, ‘রাজাকারের তালিকা মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রণয়ন করা হয়নি। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের চাহিদার প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে ১০ হাজার ৭৮৫ জন রাজাকার-আলবদর-আলশামস এবং স্বাধীনতাবিরোধীর একটি তালিকা এ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করে। প্রাপ্ত তালিকা হুবহু মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়। যেহেতু মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় উক্ত তালিকা প্রস্তুত করেনি, সেহেতু প্রশ্ন উত্থাপনের (বিতর্কের) বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে।’

বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) সংসদে মন্ত্রীদের প্রশ্নোত্তর পর্বে জামালপুর-২ আসনের মো. ফরিদুল হক খান দুলালের তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

মো. ফরিদুল হক খান তার প্রশ্নে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী অনুগ্রহ করিয়া বলিবেন কী, রাজাকারের তালিকা তৈরিতে কারো গাফিলতি আছে কি না এবং দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে সরকার কোনো উদ্যোগ নেবে কি না?’

উল্লেখ্য, বিজয় দিবসের আগের দিন ১৫ ডিসেম্বর ১০ হাজার ৭৮৯ রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। তবে ঘোষিত তালিকায় অনেক মুক্তিযোদ্ধার নাম রয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রধান প্রসিকিউটর ও ভাষাসৈনিক গোলাম আরিফ টিপুসহ রাজশাহীর আরও দুই ব্যক্তির নাম রয়েছে ওই তালিকায়, যারা মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের ছিলেন বলে প্রমাণ রয়েছে। এ নিয়ে সারাদেশে সমালোচনা শুরু হয়।

বিতর্কের মুখে ১৮ ডিসেম্বর রাজাকারের তালিকাটি স্থগিত করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। পরে যাচাই-বাছাই করে ফের তালিকা প্রকাশ করা হবে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়।