সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ মাদুরোর

ভেনেজুয়েলায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন আগ্রাসন মোকাবিলায় নিজ দেশের সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। টুইটারে দেওয়া পোস্টে তিনি বলেন, আমাদের দেশ দুর্বল বা অসহায় নয়। আমাদের রয়েছে এমন একটি সামরিক বাহিনী, যা দেশরক্ষা ও শান্তি বজায় রাখতে সক্ষম। এই সেনাবাহিনী সব সময় বিশ্বস্ত ভূমিকা পালন করে এবং কখনোই বিশ্বাসঘাতক হয় না। ভেনেজুয়েলার সেনাবাহিনী দেশের জনগণ, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও সংবিধান রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

মাদুরো এমন সময়ে এ মন্তব্য করলেন যখন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত দেশটির স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদো সরকারবিরোধী অভ্যুত্থানের জন্য সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সম্প্রতি মুষ্টিমেয় কিছু সেনা সদস্যকে দিয়ে অভ্যুত্থানের চেষ্টা করেন গুইদো। তবে শেষ পর্যন্ত তা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়।
এর আগে ভেনেজুয়েলা ইস্যুতে পূর্ব নির্ধারিত ইউরোপ সফর বাতিল করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান। এ সময়ে তিনি ওয়াশিংটনেই অবস্থান করবেন; যাতে ভেনেজুয়েলার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া সহজ হয়। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে এ বছরের শুরুতে ভেনেজুয়েলায় বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর সরকারকে অবৈধ দাবি করে নিজেকে বৈধ অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন তিনি। গত মঙ্গলবার এক ভিডিও বার্তায় আকস্মিক অভ্যুত্থানের ঘোষণা দেন গুইদো। ভিডিওতে তার সঙ্গে বেশ কয়েকজন সামরিক সদস্যকেও দেখা যায়। এই অভ্যুত্থানে সমর্থন ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাতের দাবি করেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। তিনি বলেন, ভেনেজুয়েলা কখনোই সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে মাথানত করবে না।

এমন উত্তেজনার মধ্যেই পেন্টাগনের মুখপাত্র এরিক পাহন বলেছেন, ভেনেজুয়েলা ইস্যুতে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আরও কার্যকর সমন্বয়ের উদ্দেশে ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ সময়ে দেশেই অবস্থান করবেন। জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল ও পররাষ্ট্র দফতরের সঙ্গে তিনি এ সংক্রান্ত বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করবেন। এছাড়া দক্ষিণ সীমান্ত নিয়েও কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি।

এদিকে ভেনেজুয়েলায় চলমান অস্থিরতায় সামরিক হস্তক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি নিয়ে বুধবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও আলোচনা করেছেন তিনি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স বিজনেস নেটওয়ার্ককে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে অত্যন্ত স্বচ্ছ এবং অনন্যরকম অটল। সামরিক পদক্ষেপের সম্ভাবনা রয়েছে। যদি দরকার হয় তাহলে যুক্তরাষ্ট্র তা করবে।

এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন জানান, ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে আলাপ করেছেন মাইক পম্পেও। মাদুরোর পরিকল্পনায় রাশিয়ার সম্পৃক্ততা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কতটুকু জানে তা পরিষ্কার না করলেও বোল্টন বলেন, ভেনেজুয়েলায় মস্কোর হস্তক্ষেপকে স্বাগত জানাবে না যুক্তরাষ্ট্র। এমন পরিস্থিতিতে সামরিক বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে সম্প্রতি রাজধানী কারাকাসের রাজপথে এক পদযাত্রায় অংশ নেন মাদুরো।
তিনি বলেন, পুরো পৃথিবীর সামনে ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনীকে একটি ঐতিহাসিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে যে, যারা মার্কিন ডলারের কাছে নিজেদের বিক্রি করে দেয় ওইসব নেতার অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে লড়তে তারা প্রস্তুত।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ, পার্স টুডে।

আপনার মতামত