শরীয়ত বিরোধী কথা বলায় কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ী বালাতারী মসজিদের খতীবকে আইনি নোটশ

শরীয়ত বিরোধী কথা বলায় কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ী বালাতারী মসজিদের খতীবকে আইনি নোটশ

ষ্টাফ রিপোর্টার : গত বুধবার ২৯ মে ২০১৯ তারিখ রেজিষ্ট্রী ডাকে কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ী বালাতারী শাহী জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব আমিনুল ইসলামকে এক আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মুহম্মদ এনামুল হক সরকারের পক্ষে সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবি এডভোকেট মুহম্মদ মাসুদুজ্জামান নোটিশটি পাঠান।

নোটিশে বলা হয়, বালাতারী শাহী জামে মসজিদ এর ইমাম ও খতীব হিসেবে আমিনুল ইসলাম দায়িত্ব পালন কালে গত ০৪ রমাদ্বান শরীফ, ১৪৪০ হিজরী তারিখে জুমুয়ার নামাযের পূর্বে আলোচনার সময় কতিপয় বিভ্রান্তিকর ও কুফরি বক্তব্য রাখে তার মধ্যে অন্যতম-

ক) ওয়ু ছাড়া কুরআন শরীফ ধরিয়া পড়া যাবে এবং ধরা যাবে। (নাউযুবিল্লাহ!)

খ) কাবলাল জুম্মার সুন্নত নামাজ ২ রাকাত এবং যোহরের ফরজের পূর্বে সুন্নত দুই রাকাত এবং বায়াদাল জুম্মার সুন্নত ২ রাকাত এবং কাবলাল জুম্মার নামাজ নাই।

গ) কেয়ামত সংগঠিত হওয়ার মাত্র ৬০ থেকে ৬৫ বছর বাকী আছ, হযরত ঈমাম মাহদী আলাইহিস সালাম তিনি জন্ম নিয়েছেন, তার বয়স এখন আনুমানিক ৭ বছর।

ঘ) নবী রাসুল আলাইহিস সালাম উনাদের দোষ আছে। (নাউযুবিল্লাহ!)

ঙ) বড় বড় হাদিসে ভুল আছে। (নাউযুবিল্লাহ!)

চ) ফজরের আযানের পূর্বে গজল পাঠ করা উত্তম।

ছ) হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি শুধু বিসমিল্লাহ বলেছেন, রাহমানির রাহিম তাবে- তাবেঈনগণ উনাদেরও অনেক পরে এসেছে।

উপরোক্ত বক্তব্য সমুহ সম্পূর্নরুপে পবিত্র  কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদিছ শরীফ, পবিত্র ইজমা শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াস শরীফের পরিপন্থি এবং উক্ত বক্তব্য সমুহের কোন দালিলিক প্রমান নাই। এহেন ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য নোটিশ দাতা যার পরণাই ব্যথিত, ক্ষুব্ধ এবং তিনি এসব বক্তব্যকে প্রকাশ্য ইসলাম বিরোধীতার শামীল বলে মনে করেন।

নোটিশে বলা হয়, একজন খতিব হিসেবে বিভ্রান্তিমূলক, অপচিন্তা অপব্যাখ্যা দিয়ে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার পবিত্রতা ও সৌন্দর্য নষ্ট করার যে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে তার ভুল বক্তব্যের আগামী তিন দিনের মধ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করে বিশুদ্ধ আকিদা প্রচারের প্রতিশ্রুতি বদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানানো হয়। অনথ্যায় কেন তাকে উক্ত মসজিদের ইমাম ও খতীবের পদ থেকে অপসারন করা হইবেনা সেই মর্মে ব্যাখ্যা প্রদান করতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন ব্যবস্থা না নিলে খতীব আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইন মোতাবেক মামলা করা হবে বলে জানানো হয়।

আপনার মতামত