বাজেট শুরু, চলবে ১১ জুলাই পর্যন্ত

নিউজ ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় অধিবেশন শুরু হয়েছে। নতুন অর্থ বছরের জন্য বাজেট প্রস্তাব করা হয় বলে এটিকে বাজেট অধিবেশন বলা হয়।

মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। এর আগে বিকেল ৪টায় স্পিকারের সভাপতিত্বে কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে বাজেট অধিবেশনের সময়সূচি চূড়ান্ত হয়।

এই অধিবেশনে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় প্রথম বাজেট উত্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আর এটি হবে দেশের ৪৮তম বাজেট। ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেটের আকার ধরা হয়েছে পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা।

অন্যান্য বারের মতো এবারও অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার পাঁচজন প্যানেল সভাপতি মনোনীত করেন। স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে এই পাঁচজন অগ্রবর্তিতা অনুসারে অধিবেশনে সভাপতিত্বে করবেন এবং স্পিকারের চেয়ারে বসবেন। প্যানেল সভাপতিরা হলেন- মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, এ বি তাজুল ইসলাম, হাবিবে মিল্লাত, কাজী ফিরোজ রশিদ ও মেহের আফরোজ চুমকি।

কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুরু হওয়া তৃতীয় অধিবেশন আগামী ১১ জুলাই পর্যন্ত চলবে।

জাতীয় সংসদের অধিবেশন শুরুর পর গত দেড় মাসে মৃত্যুবরণ করা ৫ জন প্রাক্তন সংসদ সদস্যের নামে শোক প্রস্তাব আনা হয়। তারা হচ্ছেন- প্রাক্তন মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, প্রাক্তন সংসদ সদস্য এবিএম তালেব আলী, আবদুল আলী মৃধা, মো. আব্দুল মজিদ মাস্টার এবং এ কে এম বজলুল করিম। পরে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এক মিনিট নিরাবতা পালন করা হয়। তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের জীবনবৃত্তান্ত সম্বলিত শোক প্রস্তাব সংসদে উত্থাপন করেন। শোক প্রস্তাবের অনুলিপি প্রত্যেক সংসদ সদস্যের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানার ভাশুর ও বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিক আহমেদ সিদ্দিক, বিশিষ্ট নাট্যকার, নির্দেশক ও অভিনেতা অধ্যাপক মমতাজউদদীন আহমদ, একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী, একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি হায়াৎ সাইফ, একুশে পদকপ্রাপ্ত নজরুল সংগীতশিল্পী, গবেষক, স্বরলিপিকার ও সংগীতগুরু খালিদ হোসেন, কঙ্গোয় জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি রৌশন আরা, বিশিষ্ট কৌতুক অভিনেতা আনিসুর রহমান, নন্দিত অভিনেতা সালেহ আহমেদ এবং অভিনেত্রী মায়া ঘোষের মৃত্যুতে সংসদ গভীর শোক প্রকাশ করে।

ঘুর্নিঝড় ফণীর আঘাতে, রাশিয়ায় বিমান দুর্ঘটনায় এবং দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানে দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে মহান জাতীয় সংসদ গভীর শোকপ্রকাশ, সকল বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় বাজেট উপস্থাপন:
সংসদে আগামী বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাজেটের আকার প্রাক্কলন করা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯১ কোটি টাকা যা জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ।

অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের এটিই হবে প্রথম বাজেট। বাজেট বক্তৃতার নামকরণ করা হয়েছে, ‘সমৃদ্ধির সোপানে বাংলাদেশ, সময় এখন বাংলাদেশের, সময় এখন আমাদের’। বাজেট পেশের দিন বক্তৃতাসহ ১২টি বাজেট ডকুমেন্ট সংসদ সদস্যের হাতে দেওয়া হবে। তবে ইংরেজি-বাংলা মিলিয়ে বাজেট ডকুমেন্টসের সংখ্যা হতে পারে ২৬টি।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, অন্যান্য বারের চেয়ে এবারের বাজেট বক্তৃতা অনেকটাই সংক্ষিপ্ত হবে। যার আভাস অর্থমন্ত্রী আগেই দিয়েছিলেন। বক্তৃতা ছোট হলেও বাজেট উপস্থাপনকালে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে দেশের স্বাধীনতার পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হবে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক বৈঠকে এডিপি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। নতুন অর্থবছরের বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপনের আগে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট মন্ত্রিপরিষদে উপস্থাপন করে তা অনুমোদন নেওয়া হবে।

অর্থমন্ত্রী তার বক্তৃতায় জাতীয় সংসদের স্পিকারের মাধ্যমে দেশবাসীকে বিভিন্ন বিষয়ে আশ্বস্ত করবেন। অর্থমন্ত্রী কর আদায়ে কর দাতাদের হয়রানি না হওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করে এর আগে বলেছেন, ‘রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়লেও কর হার বাড়বে না, শুধু করের আওতা বাড়বে। যারা আগে কর দিতেন তারা এখন কম কর দেবেন আর যারা কর দিতেন না তাদের করের আওতায় আনা হবে। কর দেওয়ার উপযুক্ত সবাইকে করের আওতায় এনে রাজস্ব আয় বাড়ানো হবে।’ অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতায় এ বিষয়টি উল্লেখ থাকবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

আপনার মতামত