ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হলেই পথচারীকে আটক করবে পুুলিশ: ডিএমপি কমিশনার

পুলিশ (2)

নিউজ ডেস্ক: ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হলে পথচারীকেও আটকের পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তান মহানগর নাট্যমঞ্চে ট্রাফিক শৃঙ্খলা ও সচেতনতা বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় এ পরামর্শ দেন তিনি।

সড়কে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘শুধু চালকদের দোষ দিলে হবে না। পথচারীরাও কানে হেডফোন লাগিয়ে যত্রতত্র রাস্তা পার হচ্ছেন। জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার করছেন না। ফুটওভারব্রিজ ব্যবহার করছেন না। এসব পথচারীদের আটক করে মিডিয়া ডেকে দেশবাসীকে দেখান। দুর্ঘটনা ঘটলে আমরা কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে যাই। জবাব দিতে পারি না। কিন্তু এটার পরিবর্তন হওয়া দরকার।’

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘জনগণ যাতে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করে, জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার করে, সেজন্য ট্রাফিক বিভাগকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিচ্ছি। দুর্ঘটনা ঘটানোয় বাস যেমন আটক করেন, তেমনি দুর্ঘটনার কারণ হলে পথচারীকেও আটক করুন। দেশের মানুষকে দেখান যে, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে, জেব্রা ক্রসিং ব্যতীত রাস্তা পার হতে গিয়ে কত দুর্ঘটনা ঘটছে।’

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশ ইউনির্ভাসিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ছাত্র আবরার সম্পর্কে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘যে জেব্রা ক্রসিং মানুষকে রাস্তা পারাপারে নিরাপদ করে, সেই জেব্রা ক্রসিংয়েই প্রাণ দিতে হলো আবরারকে। আবরারের মৃত্যু চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, ঢাকা শহরের পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা আনতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি। এর জন্য সংশ্লিষ্ট সবাই দায়ী। গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোর চূড়ান্ত সময় এখন এসেছে।’

আবরারকে চাপা দেওয়া সুপ্রভাত বাস সম্পর্কে কমিশনার বলেন, ‘আবরারকে চাপা দেওয়া সুপ্রভাত বাসটির রুট পারমিট ছিল না। শুধু তাই নয়, ওই বাসের বিরুদ্ধে ২৭টি মামলাও ছিল। ঢাকা-ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রুটের পারমিট ছিল ওই বাসটির।’

মালিক-শ্রমিকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘টিকিট কাউন্টার করে বাস চালান, লক্কর-ঝক্কর ও মডেলবিহীন গাড়ি রাস্তায় নামাবেন না। চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল করুন। এসব না করলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। রাস্তার পাশে স্টপজে গাড়িগুলোকে দাঁড় করান। সেখানে আড়াআড়িভাবে দাঁড়াবেন না। এটি করলে রেকারিং করে ডাম্পিং করা হবে। আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। অনেক ছাড় দেওয়া হয়েছে, আর নয়।’

আবরারের মৃতুর ঘটনায় শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ না করার অনুরোধ জানিয়ে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘সড়ক অবরোধ করে কোটি কোটি মানুষের দুর্ভোগ তৈরি করবেন না। দায়িত্বশীল আচরণ করুন। আপনারা ক্লাসে ফিরে যান। আমাদের কাজ করতে সহযোগিতা করুন। চালক ও গাড়ি আটক হয়েছে। গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

গত মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর নর্দ্দা এলাকায় বাসচাপায় নিহত হন আবরার আহমেদ চৌধুরী। এ ঘটনার পর বাসচালক ও হেলপার পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে চালককে ধরে ফেলেন সেখানে থাকা শিক্ষার্থীরা। পরে তাকে আটক করে পুলিশ। আবরার নিহতের ঘটনায় আবারও নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় নামে শিক্ষার্থীরা।

আপনার মতামত