আবরও হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি

প্রযুক্তি ডেস্ক : হোয়াটসঅ্যাপের একটি ত্রুটি পেয়ে তা দিয়ে বিভিন্ন স্মার্টফোনে স্পাইওয়্যার স্থাপন করেছে ইসরায়েলি একটি প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের সব তথ্য ওই প্রতিষ্ঠানের হাতে চলে যাচ্ছে। এরই মধ্যে অনেক গ্রাহকের তথ্য ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠানের হাতে চলে গেছে বলে মনে করা হচ্ছে।
বর্তমানে ১৫০ কোটিরও বেশি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছে। এ মাসের প্রথম সপ্তাহে জানা যায়, আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পর্যবেক্ষণের জন্য একটি সফটওয়্যার ইনস্টল করেছে আক্রমণকারীরা। হোয়াটসঅ্যাপের ফোনকল ফাংশন ব্যবহার করে কাজটি করে তারা।
ফিনান্সিয়াল টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠান এনএসও গ্রুপের তৈরি পর্যবেক্ষণের জন্য কোডটি কলের মাধ্যমে পাঠানো হতো। এমনকি গ্রাহকরা কল রিসিভ না করলেও এটা চলে আসতো। পর্যবেক্ষণ কোড বহনকারী এসব কল মাঝেমধ্যেই কলের তালিকা থেকে মুছে যেত স্বয়ংক্রিয়ভাবেই।
রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে স্পাইওয়্যার স্থাপন করা হয়েছে নির্দিষ্ট ব্যবহাকারীদের স্মার্টফোনে। অর্থাৎ, আক্রমণকারীরা যাদের টার্গেট করেছে তাদের ফোনেই এগুলো স্থাপন করা হয়। এজন্য সবার উদ্বেগের কিছু নেই।
যদিও এখন পর্যন্ত জানা যায়নি, ঠিক কী পরিমাণ গ্রাহকের স্মার্টফোনে স্পাইওয়্যার স্থাপন করেছে তারা। ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ এরইমধ্যে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। অবশ্য তদন্তের একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে আছে তারা। এ কারণে ঠিক কতজন গ্রাহক এই হামলার শিকার হয়েছেন তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি।

অবশ্য এই সমস্যা থেকে বাঁচতে এরই মধ্যে প্রাথমিক একটি সমাধান দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, হোয়াটসঅ্যাপের সর্বশেষ ভার্সনটি ব্যবহার করতে। একইসঙ্গে স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেমের আপডেটেড ভার্সন ব্যবহারের পরামর্শও দিয়েছে তারা।

আপনার মতামত